0

দেয়াল ভেদ করে নিখুঁতভাবে দেখার ব্যবস্থা আবিষ্কৃত হলো

scan wall deyalযে কোনো দেয়ালের ওপাশে কোনো মানুষ রয়েছে কি না, তা জানার জন্য সম্প্রতি এক প্রযুক্তি উন্নয়ন করেছেন গবেষকরা। এ প্রযুক্তিতে রেডিও সিগন্যাল ব্যবহার করে জানা হবে দেয়ালের ওপাশের ব্যক্তির উপস্থিতি। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফক্স নিউজ।
‘এক্স-রে ভিশন’ প্রযু্ক্তিতে ব্যবহৃত হচ্ছে রেডিও ওয়েভ শনাক্তকরণ ব্যবস্থা। এর মাধ্যমে মূলত মানুষের নড়াচড়া নির্ণয় করা যাবে। মানুষের দেহ থেকে রেডিও ওয়েভ বাধা পেয়ে ফিরে আসাকেই নির্ণয় করবে যন্ত্রটি।
প্রযুক্তিটি উন্নয়ন করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) বিজ্ঞানীরা। রেডিও ওয়েভ ফিরে আসা নিখুঁতভাবে যন্ত্রে শনাক্ত করে করে তা বিশ্লেষণের মাধ্যমে দেয়ালের ওপাশের মানুষের উপস্থিতি নির্ণয় করতে পারবে যন্ত্রটি। এ কাজে কম্পিউটারের মাধ্যমে বিশেষ সূত্র ব্যবহার করে ফিরে আসা রেডিও সিগন্যাল বিশ্লেষণ করতে হবে।
অন্য কয়েকটি পদ্ধতিতে অন্ধকার থাকতেও মানুষের উপস্থিতি জানা যায়। তবে সেক্ষেত্রে মোশন-ট্র্যাকিং ডিভাইস ব্যবহার করা হয়, যা এ ব্যবস্থা থেকে আলাদা।
বাস্তব পরীক্ষায় দেখা যায়, সিস্টেমটির আওতায় ১৫ ধরনের ভিন্ন মানুষকে ৯০ শতাংশ নির্ভুলতার সাহায্যে শনাক্ত করা যায়। যন্ত্রটি মানুষের নড়াচড়া ০.৮ ইঞ্চি পর্যন্ত নিখুঁতভাবে শনাক্ত করতে পারে বলে জানান গবেষকরা।
প্রযুক্তিটি বিষেয়ে এমআইটির গবেষক ও পিএইচডি শিক্ষার্থী ফ্যাডেল আডিব বলেন, ‘এটা বাস্তবে আপনাকে দেয়ালের ওপাশে দেখতে সহায়তা করবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের আবিষ্কার এখনো অন্য যে কোনো অপ্টিক্যাল সিস্টেমে পাবেন না। গত তিন বছরে আমরা দেয়ালের ওপাশের কোনো বস্তুর অস্তিত্ব জানা থেকে তার নড়াচড়া নির্ণয়ের প্রযুক্তিতে উন্নয়ন করতে সক্ষম হয়েছি। এখন আপনি এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ওপাশের মানুষটি দেখতে কেমন এবং তার শ্বাস-প্রশ্বাস ও হৃৎস্পন্দন জানতে পারবেন।’
এ প্রযুক্তি বিভিন্ন ইশারা নিয়ন্ত্রণ কাজে ব্যবহৃত ডিভাইসে ব্যবহার করা যাবে। এ প্রযুক্তিটি মাইক্রোসফটের কাইনটেক সিস্টেমের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে কাজ করবে। এটি সিনেমার স্পেশাল ইফেক্টে মোশন ক্যাপচার, স্মার্ট বাড়ির যন্ত্রপাতি নিয়ন্ত্রণ, চিকিৎসাক্ষেত্রে রোগীর নড়াচড়া নির্ণয় কিংবা গেইমিংয়ে ব্যবহার করা যাবে।

 

— kalerkantho

মন্তব্য করুন